মঙ্গলবার নিশ্চিত করেছে সালমাদের বিশ্বকাপ টিকিট

সচরাচর কোন বহুজাতিক টুর্নামেন্টে খেলতে গেলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ খুব কমই দেখা যায় বাংলাদেশ ক্রিকেটে। বিশেষ করে কোন দল যদি মাঝের ৪ বছরে জয়হীন থাকার পর আট দলের টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার আশা ব্যক্ত করে, তাহলে সেটাকে অনেকেই হেসে উড়িয়ে দেবেন।

কিন্তু অবাক হলেও সত্যি নেদারল্যান্ডসে বিশ্ব নারী টি-টোয়েন্টি বাছাইপর্বে খেলতে যাওয়ার আগে বাকি সাত দলকে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যই জানিয়েছিলেন বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের সদস্যরা। নভেম্বরে হতে যাওয়া বিশ্ব নারী টি-টোয়েন্টির টিকিট পেতে টুর্নামেন্টের সেরা দুই দলের একটি হলেই হবে।

তবে যেভাবে এগুচ্ছেন সালমা-রুমানারা, তাতে করে নিজেদের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্য পূরণ না হওয়াটাই জন্ম দিবে অবাক বিস্ময়ের। গ্রুপ পর্বের দুই ম্যাচেই প্রায় নিশ্চিত হয়ে গেছে বিশ্ব টি-টোয়েন্টির টিকিট। মঙ্গলবার আরব আমিরাতের বিপক্ষে নারী দল খেলে গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচ।

প্রথম দুই ম্যাচেই হেসে খেলে জিতেছে সালমা খাতুনের দল। উদ্বোধনী দিনে পাপুয়া নিউগিনিকে ৮ উইকেট ও পরের দিন স্বাগতিক নেদারল্যান্ডসকে ৭ উইকেটে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে নারী দল। নেট রান রেটটাও বেশ চড়া (২.৫৮৫)।

মঙ্গলবার নিজেদের শেষ ম্যাচে আরব আমিরাতের মুখোমুখি  বাংলাদেশ। নিজেদের দুই ম্যাচে ১টি করে জয়-পরাজয়ে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয়তে অবস্থান করছে আরব আমিরাতের মেয়েরা, নেট রান রেট ০.০২৩। শেষ ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে কেবল জয় পেলেই হবে না তাদের, ঘোচাতে নেট রান রেটের বিশাল ফারাকটাও। সেক্ষেত্রে সালমা-রুমানাদের বড়সড় ব্যবধানে হারানো ব্যতীত কোন পথ খোলা ছিল না তাদের সামনে।

কিন্তু মাঠের খেলাটা তো আর অঙ্কের মারপ্যাঁচ নয়। বাস্তবতা বলছে শেষ ম্যাচেও পরিষ্কার ফেবারিট বাংলাদেশের মেয়েরাই। এশিয়া কাপে টানা ৫ ম্যাচ জিতে শিরোপা জেতা এবং পরে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জিতে আত্মবিশ্বাসে টইটুম্বুর হয়েই বাছাই খেলতে এসেছিল বাংলাদেশ। সেই ধারা বজায় রেখে প্রথম দুই ম্যাচেও পেয়েছে দাপুটে জয়।

তাই শেষ ম্যাচেও আরব আমিরাতের বিপক্ষে রুমানা-জাহানারাদের সহজ জয়ই  ছিল সকলের প্রত্যাশা। শেষ ম্যাচ খেলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফাইনাল ম্যাচ খেলার সুযোগ  বাংলাদেশের এবং একইসাথে নিশ্চিত হয়ে আগামী নভেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজে হতে যাওয়া বিশ্ব নারী টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ দলের অংশগ্রহণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *