মেয়েদের নিয়ে আগে থেকেই কাজ করছে বিসিবি-সুজন

বাংলাদেশের পুরুষ ক্রিকেট দল যতটা সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকে তার ছিটেফোঁটাও পায় না বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। এমন অভিযোগ দেশের ক্রিকেট ভক্ত প্রতিটি মানুষেরই। এমনকি সালমা, জাহানারাদের ম্যাচ ফির পরিমাণও একেবারে নগণ্যই বলা চলে।

শুধু আর্থিক দিক থেকেই নয়, নারী ক্রিকেট দলের সদস্যেরা অবহেলিত অন্যান্য সুযোগ সুবিধা পাওয়ার ক্ষেত্রেও। কিন্তু এরপরেও তারা যে সম্মান দেশের জন্য এনে দিচ্ছেন তা বলা যায় এককথায় অপরিসীম। কয়েকদিন আগেই এশিয়া কাপ জিতে দেশে ফিরে এসেছে রুমানা আহমেদের দল।

এরপর আয়ারল্যান্ডে টি টুয়েন্টি সিরিজ জয় করে আসার পর নেদারল্যান্ডসে অনুষ্ঠিত টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে দাপট দেখিয়ে মূল পর্বে পা রেখেছে তারা। দেশকে এত সাফল্য এনে দেয়ার পর অবশেষে টনক নড়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি)।

নারী ক্রিকেট দলের ম্যাচ ফি এবং বেতন বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। পাশাপাশি দলের উন্নয়নে নাকি আরও অনেক উদ্যোগ হাতে নেয়া হয়েছে। যদিও বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন দাবি করেছেন এসব সিদ্ধান্ত নাকি দেশকে সাফল্য এনে দেয়ার আগেই নেয়া হয়েছে। তার মতে আগে ফলাফল না পাওয়ার কারণেই মানুষের মনে ভ্রান্ত ধারণা সৃষ্টি হয়েছে। বিসিবির এই কর্মকর্তা বলেন,

‘আমরা কিন্তু মেয়েদের ক্রিকেট নিয়ে অনেকদিন থেকেই কাজ করছি। তবে এর ফলাফল পাচ্ছিলাম না। কিন্তু আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছিলাম। কিছু বক্তব্য এসেছে এবং মানুষের মধ্যে একটি ধারণা তৈরি হয়েছে যে এই ফলাফল পাওয়ার পরেই আমরা কাজ করছি। তবে বিষয়টি তেমন না।’

বর্তমানে নারী ক্রিকেট দলকে নিয়ে অনেক কাজ করা হচ্ছে বলেও নিশ্চিত করেন সুজন। এক্ষেত্রে ইংল্যান্ডের ব্যাটিং কোচ নিয়োগ দেয়ার কথা উল্লেখ করেছেন তিনি। সুজনের ভাষ্যমতে,

‘আপনারা জানেন যে এর আগে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট কোচ অ্যাপয়েন্টমেন্ট দেয়া হয়েছিলো। এরপর ইংল্যান্ডের একজন ব্যাটিং স্পেশালিষ্ট কোচকে দলের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে এবং তার তত্ত্বাবধানে বছর দুয়েক ট্রেনিং করেছে এবং বিভিন্ন সিরিজে অংশ নিয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *